জ্ঞান বিজ্ঞানে এগিয়ে থাক, নিজেকে প্রমান কর
Monday, 5 , February, 2018

serum-plasma

Definition of Blood coagulation factors and function

Written by jobaer , 148 Views, Date : 5 Feb, 18

যে প্রক্রিয়ায় ক্ষতস্থান থেকে নির্গত হওয়া রক্তের প্লাজমা থেকে fibrinogen আলাদা হয়ে ক্ষতস্থানে fibrin নির্মাণের মাধ্যমে রক্তপাত বন্ধ করে ফলে রক্তের অবশিষ্টাংশ থকথকে পিন্ডে পরিণত হয় সে প্রক্রিয়ার নাম রক্ত তন্তু বা রক্ত জমাট বাঁধা ।
রক্ত বাহিকার অভ্যন্তরে রক্ত জমাট বাঁধতে পারেনা কারণ সেখানে হেপারিন নামে এক পদার্থ সংবলিত হয় ।কিন্তু দেহের কোন অংশে ক্ষত সৃষ্টি হলে রক্ত যখন দেহের ক্ষত অংশ থেকে বের হতে থাকে তখন ওই অংশের অনুচক্রিকা গুলো বাতাসের সংস্পর্শে ভেঙ্গে যায় এবং ক্ষতের মুখের জমাট বাঁধিয়ে রক্তপাত বন্ধ করে।

রক্তরসে অবস্থিত ১৩ টি বিভিন্ন clotting factor .যার ধারাবাহিক কার্যকারিতার ফলে ক্ষত স্থানে রক্ত জমাট বাঁধে।
Clotting factor :
Blood coagulation

  1. Factor I—Fibrinogen
  2. Factor II—Prothrombin
  3. Factor III—Thromboplastin
  4. Factor IV—Calcium ion
  5. Factor V—Proaccelerin
  6. Factor VI—Does not exist
  7. Factor VII—Proconvertin
  8. Factor VIII—Antihaemophilic factor A
  9. Factor IX—Christmas factor
  10. Factor X—Antihaemophilic B
  11. Factor XI—Antihaemophilic C.
  12. Factor XII—Hageman factor
  13. Factor XIII—Fibrin stabilizing factor

blood

  • দেহের কোন অংশে ক্ষত সৃষ্টি হলে সেখান থেকে নির্গত রক্তের অনুচক্রিকা গুলো বাতাসের সংস্পর্শে এসে ভেঙ্গে যায় এবং thromboplastin নামক plasma protein তৈরি হয়।
  • থ্রম্বপ্লাস্টিন রক্তের heparin কে অকেজো করে দেয় এবং রক্তরসে অবস্থিত ক্যালসিয়াম আয়নের উপস্থিতিতে প্রথম্বিন নামক গ্লাইক প্রোটিন এর সাথে ক্রিয়া করে থ্রম্বিন এনজাইম উৎপন্ন করে
  • Thrombin রক্তে অবস্থিত ফেব্রিনোজেন নামক দ্রবণীয় প্লাজমা প্রোটিন এর সাথে মিলিত হয় এবং fibrin নামক অদ্রবণীয় সূত্রের সৃষ্টি করে.
  • এভাবেই সৃষ্ট সূত্র গুলো পরস্পর মিলিত হয়ে যাক এর আকার ধারণ করে
    Fibrin এর জালকে লোহিত রক্ত কণিকা গুলো আটকে যায়। জলে রক্ত প্রবাহ বন্ধ হয় এবং জমাট বাঁধে।

Write your comments here

comments